গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম জেনে নিন সহজ উপায়

কিভাবে একটি Google অ্যাকাউন্ট তৈরি করা যায় সেটা আজকে এখানে জানতে পারবেন। বর্তমানে সবার জন্যই গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম জানা দরকার। কারণ গুগল ছাড়া একটি স্মার্ট ফোন অচল হয়ে যায় বললেই চলে। আপনি গুগল ছাড়া কোনো অ্যাপস বা গেমস ডাউনলোড করতে পারবেন না প্লে-স্টোর থেকে। এছাড়াও গুগলের বিভিন্ন সেবা থেকে বঞ্চিত হতে হবে। তাই গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম জানতে হবে আপনারও।

গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম

নিজে নিজেই গুগল একাউন্ট তৈরি করতে পারলে আপনার জন্য সবচেয়ে বেশি সুবিধা হবে । কারণ সব সময় অন্যদের দিয়ে account তৈরি করা সম্ভব নাও হতে পারে।

আপনি যদি একটি জিমেইল একাউন্ট তৈরী করতে পারেন তাহলেই গুগলের সকল ধরনের সেবা গ্রহণ করতে পারবেন। তাই আপনাকে সর্বপ্রথম একটি জিমেইল আইডি খোলার উপায় জানতে হবে।

এখানে আজকে আমি গুগলের বিভিন্ন পণ্য নিয়ে আলোচনা করবো ও সেই পণ্যগুলো ব্যবহার করার জন্য কিভাবে একাউন্ট তৈরি করতে হবে সেটাও জানতে পারবেন।

গুগল কি? What is google?

সারা বিশ্বের সবাই গুগলকে এক নামে চিনে সেটা হলো গুগল সার্চ ইঞ্জিন। কেউ অনলাইনে কিছু সন্ধান করলে সবাই গুগলে সার্চ করেন। মূলত সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমেই google এখন সারা বিশ্বে সুনাম অর্জন করেছে।

বর্তমানে গুগলের আরো কিছু পণ্য রয়েছে যেগুলো সবার কাছে খুব জনপ্রিয় যেমন- ইউটিউব, জিমেইল, গুগল ড্রাইভ ইত্যাদি। আপনার কাছে গুগলের কোন পণ্যটি সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে চাইলে নিচে কমেন্ট করে আমাদের কাছে শেয়ার করতেন। [ গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম ]

গুগল একাউন্ট কেন খুলবেন?

আমি আগেই বলেছি গুগল ছাড়া স্মার্ট ফোন অচল হয়ে যায়। Huawei মোবাইল থেকে গুগলের সকল ধরনের সেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিলো সেটা হয়তো অবশ্যই জানেন।

google এই কাজ কেন করেছিলো সেটা গুগল এবং হুয়াওয়ে কোম্পানি ভালো জানে। গুগলের এই উদ্যোগের কারনে হুয়াওয়ে কোম্পানির মোবাইল বাঁজার অনেক ডাউন হয়ে যায়।

মানুষ হুয়াওয়ে মোবাইল ক্রয় করত না এবং হুয়াওয়ে মোবাইলের বাঁজারদর অনেকটাই কমে গিয়েছিলো।

তাই বলতেই হয় গুগল ছাড়া স্মার্ট ফোন কেউ ইউজ করতে চাইবে না এবং মোবাইলের প্রতি ক্রেতাদের আগ্রহ কমে যাবে।

আপনি ইন্টারনেট ব্রাউজিং থেকে শুরু করে জিমেইল, ইউটিউব নানা রকম সুবিধা ভোগ করতে পারবনে গুগলের মাধ্যমে।

বিশেষ করে ইউটিউব ছাড়া মানুষের জেন দিনই চলে না। যেকোনো ধরনের ভিডিও খুঁজার জন্য সবাই এখন ইউটিউবে সার্চ করে থাকে । সুতরাং গুগল আপনাকে সয়ংসম্পূর্ণভাবে মোবাইল ইউজ করতে সহায়তা করবে। [ গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম ]

কীভাবে আপনি একটি মাত্র একাউন্ট তৈরি করে গুগলের বেশ কয়েকটি সেবা ভোগ করতে পারবেন সেটা নিয়ে আগে আলোচনা করবো । তাহলে চলুন জেনে নেই –

আপনি যদি একটি জিমেইল একাউন্ট তৈরি করেন তাহলে প্লে-স্টোর, ইউটিউব, গুগল ড্রাইভ, গুগল সার্চ ইঞ্জিন ইত্যাদি ব্যবহার করতে পারবেন।

মোট কথা একটি জিমেইল আইডি খোলার মাধ্যমে আপনি গুগলের যেকোনো পণ্য খুব সহজেই ব্যবহার করতে পারবেন । তবে চলুন একটি জিমেইল আইডি খোলার নিয়ম জেনে নেই।

আরো পড়ুন –

জিমেইল আইডি খোলার নিয়ম

কম্পিউটার দিয়ে কিভাবে একটি জিমেইল আইডি তৈরি করা যায় সেটা এখন আমি দেখাব। জিমেইল অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য প্রথমে আপনার পছন্দের ব্রাউজারটি ওপেন করে সার্চ বক্সে Gmail.Com লিখে এন্টার বাটনে চাপ দিন।

সাথে সাথে আপনার সামনে জিমেইল আইডি খোলার একটি এন্টারপেজ চলে আসবে। আপনি যেহেতু নিউ অ্যাকাউন্ট তৈরি করবেন তাই Create Account লেখাটির মধ্যে ক্লিক করতে হবে।

এবার আপনার সামনে একটি ফর্ম চলে আসবে যেটা ফিল আপ করতে হবে। আপনি সবকিছু সঠিকভাবে পূরণ করে Next বাটনে ক্লিক করবেন।

ইমেইল আইডি খোলার নিয়ম

আপনার দেওয়া তথ্যগুলো যদি ঠিক থাকে তাহলে নতুন আরো একটি ফর্ম আসবে যেটা পূরণ করতে হবে। মনে রাখবেন যেসব তথ্যগুলো দিচ্ছেন সেগুলো জেন সঠিক হয় এবং মনে রাখবেন।

নতুন গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম

সবকিছু ঠিকভাবে বসালে Next বাটনে ক্লিক করবেন। আপনি যদি মোবাইল নাম্বারটি বসিয়ে থাকেন তাহলে ভেরিফিকেশন করার জন্য আপনার মোবাইলে গুগল থেকে একটি ভেরিফিকেশন কোড যাবে যেটা বসিয়ে আপনার কিবোর্ডের এন্টার বাটনে চাপ দিবেন। [ গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম ]

এবার আপনার সামনে গুগলের কিছু প্রাইভেসি এন্ড টার্মস শো করবে যেগুলো আপনার জেনে নেওয়া দরকার। কারণ একটি জিমেইল একাউন্টের মাধ্যমে মানুষ নানা ধরনের অপকর্মে যুক্ত হতে পারে। এবং কিভাবে লিগেল ভাবে ইমেইল করতে হয় সেটাও জেনে নিতে পারবেন।

আর এই Gmail একাউন্ট দিয়ে আপনি গুগলের আরো কয়েকটি সেবা নিতে পারবেন সেটাও এখানে বলে দেওয়া হয়েছে । তো গুগলের শর্ত মতে আপনি যদি জিমেইল একাউন্ট ব্যবহার করতে চান তাহলে i agree বাটনে ক্লিক করুন। অভিনন্দন !

আপনার জিমেইল একাউন্ট তৈরি হয়ে গেছে। আপনি এখন এই জিমেইল অ্যাকাউন্ট দিয়ে বিভিন্ন সেবা নিতে পারবেন অনলাইন থেকে। এটা আপনাকে পিসি বা ল্যাপটপ দিয়ে জিমেইল আইডি খোলার নিয়ম দেখালাম।

তাহলে চলুন এবার আমরা মোবাইল দিয়ে জিমেইল একাউন্ট খোলার নিয়ম জেনে নেই এবং প্লে-স্টোর এর সহায়তা নেই। যার ফলে গুগলের দুটি একাউন্ট একসাথেই খোলা হয়ে যাবে। অর্থাৎ আপনি প্লে-স্টোর একাউন্ট তৈরি করলেই জিমেইল আইডি তৈরি হয়ে যাবে।

মোবাইল দিয়ে জিমেইল একাউন্ট তৈরি করার নিয়ম

প্লে-স্টোরের মাধ্যমে আপনি একটি জিমেইল একাউন্ট তৈরী করতে পারবেন খুব সহজেই। মোবাইলের মাধ্যমে জিমেইল একাউন্ট বা গুগল একাউন্ট খোলার জন্য প্লে-স্টোরই হলো সবচেয়ে বেস্ট। তো আমি এখন প্লে-স্টোর দ্বারা গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম দেখাবো।

  • জিমেইল বা গুগল ওপেন করার জন্য প্রথমে আপনি আপনার মোবাইল থেকে প্লে-স্টোর অ্যাপে প্রবেশ করেন।
  • আপনার প্লে-স্টোর একাউন্ট যদি খোলা না থাকে তাহলে দুটি অপশন পাবেন যেটা থেকে আপনি নিচের অপশনটি অর্থাৎ “NEW” লেখাটির মধ্যে ক্লিক করবেন।
  • এবার আপনি আপনার FIRST NAME এবং LAST NAME দিয়ে ওকে বাটনে ক্লিক করুন অথবা “RIGHT ARROW” বাটনে ক্লিক করুন।
  • এখন আপনি নিজের মতো করে জিমেইলের নাম বসাতে পারেন। যদি ইউনিক একটি নাম দেন তাহলে সেটাই গুগল গ্রহণ করবে অন্যথায় গুগল নিজের মতো করে ইউনিক নাম আপনাকে সাজেস্ট করবে।

মনে রাখবেন জিমেইল নামের মধ্যে কখনো স্পেইস দেওয়া যায় না । সুতরাং আপনি জিমেইলের নাম বসিয়ে “RIGHT ARROW” বাটনে ক্লিক করবেন বা OK করবেন।

জিমেইল একাউন্ট খোলার উপায়

  • আপনার সবকিছু ঠিকভাবে হয়ে থাকলে পাসওয়ার্ড সেট করার অপশন আসবে। এখন একই পাসওয়ার্ড দুই ঘরে বসিয়ে ওকে বাটনে ক্লিক করুন।

মনে রাখবেন জিমেইল একটি পার্সোনাল একাউন্ট। আপনার জিমেইলের মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ নানা রকম মেইল আদান-প্রদান করা হবে । তাই খুব শক্তিশালী একটি পাসওয়ার্ড বসানোর চেষ্টা করবেন।

  • পাসওয়ার্ড সেট করার পর আপনি নিউ একটি এন্টারপেজ দেখতে পারবেন যেখানে দুটি অপশন শো করবে এবং সেখান  থেকে আপনি “NOT NOW” তে ক্লিক করবেন। এবং আবার “RIGHT ARROW” বাটনে ক্লিক করতে হবে ।

google একাউন্ট কিভাবে খুলবো

  • এখন আপনার সামনে গুগলের কিছু Terms & Conditions জানার জন্য উপস্থান করা হবে। আপনি চাইলে সেগুলো পড়ে দেখতে পারেন এবং না পড়তে চাইলে “I ACCEPT” বাটনে ক্লিক করুন।

gmail একাউন্ট খোলার নিয়ম

  • এবার গুগল আপনার কাছে কিছু সময় নিয়ে ভেরিফিকেশন কোড শো করবে এবং সেটা ঠিক মতো টাইপ করে ওকে করে দিন ( অনেক সময় এই ভেরিফিকেশন কোড আসবে না )। না আসলে কোনো সমস্যা নেই । কারণ এটা মূলত দেওয়া হয় আপনি রোবট নাকি মানুষ কিনা সেটা যাচাই করার জন্য।

এখন আর কোনো অপশন আসলে ওকে করে দিন । অভিনন্দন! আপনার জিমেইল একাউন্ট তৈরি করা হয়েগেছে এবং এভাবে মোবাইল নাম্বার ছাড়াই আনলিমিটেড gmail account তৈরি  করতে পারবেন।

যদি আপনার জিমেইল আইডি আরো সিকিউর করতে চান তাহলে মোবাইল নাম্বারটি সেট করে দিতে পারেন। যেকোনো Gmail বা Email অ্যাপের মধ্যে আপনার তৈরি করা জিমেইল এড্রেস ও পাসওয়ার্ড টাইপ করে একাউন্টের সেটিং এ গিয়ে মোবাইল নাম্বার সেট করতে পারবেন।

( কিভাবে জিমেইলের মধ্যে মোবাইল নাম্বারযুক্ত করবেন সেটা জানতে নিচে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে পারেন )। আর এভাবে আপনি একটি নাম্বার দিয়ে কয়েকটি জিমেইল আইডি খুলতে পারবেন । [ গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম ]

একটি নাম্বার দিয়ে কয়টি জিমেইল আইডি খোলা যায়

সাধারণত একটি নাম্বার দিয়ে ৪-৫ টি জিমেইল অ্যাকাউন্ট খোলা যায় । তবে আপনি যদি কয়েকটি জিমেইল একাউন্ট থেকে নাম্বার রিমুভ করে দেন তাহলে আরো নতুন জিমেইল একাউন্ট তৈরী করতে পারবেন সেই একই নাম্বার দিয়ে। এভাবে আপনি আনলিমিটেড জিমেইল আইডি তৈরি করতে পারবেন।

প্লে-স্টোর ছাড়া মোবাইল দিয়ে আরো একটি উপায় জিমেইল ও গুগল অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারবেন। সেটা জানার জন্য নিচের স্টেপগুলো ফলো করুন –

স্টেপ-১ :

প্লে-স্টোর ছাড়া মোবাইল দিয়ে জিমেইল বা গুগল একাউন্ট খোলার জন্য আপনাকে যেকোনো একটি ব্রাউজার ওপেন করতে হবে ।

তো আমি আমার পছন্দের Google Chrome ব্রাউজারটি ওপেন করছি । তারপর সার্চ বক্সে Gmail.Com লিখে সার্চ করুন । gmail এর হুম পেজে গেলে আপনি “Create An Account” লেখাটি দেখতে পাবেন এবং সেটায় ক্লিক করবেন।

স্টেপ-২ :

জিমেইল আইডি খোলার জন্য প্রথমেই আপনার সামনে একটি ফর্ম আসবে যেটার প্রত্যেকটি ঘর আপনাকে ফিল আপ করতে হবে ।

ইমেইল একাউন্ট তৈরী

“Username” এর মধ্যে অনেক সময় অটোম্যাটিক জিমেইলের নাম বসে যাবে, আপনি চাইলে সেটা পরিবর্তন করে একটি ইউনিক নাম বসাতে পারবেন। তো আপনি সঠিক জায়গায় সঠিক তথ্য দিয়ে “Next” বাটনে ক্লিক করবেন ।

স্টেপ-৩ :

সবকিছু ঠিকঠাক ভাবে থাকলে নতুন এন্টার পেজ আসবে এবং এখানে আপনাকে মোবাইল নাম্বার বসাতে হবে।

গুগল অ্যাকাউন্ট জিমেইল

আপনি মোবাইল নাম্বারটি বসিয়ে “Next” বাটনে ক্লিক করবেন। এবং আপনার নাম্বারটি ভেরিফাই করার জন্য আপনার কাছে একটি ভেরিফিকেশন কোড পাঠানো হবে যেটা ৬ ডিজিটের হবে। আপনি সেই কোড খালি ঘরে বসিয়ে দিয়ে “Next” এ ক্লিক করবেন।

গুগল অ্যাকাউন্ট তৈরি

কোডটি সঠিক হলে পরবর্তি স্টেপে যেতে পারবেন।

স্টেপ-৪ :

এখন আপনার সামনে একটি নতুন ফর্ম আসবে যেটা আপনার পূরণ করতে হবে।

google একাউন্ট খোলার নিয়ম

ফর্মটি পূরণ করার পর “Next” বাটনে ক্লিক করতে হবে। এবং এরপর আপনার আপনার সামনে google জিমেইলের কিছু “Privacy and Terms” শো করবে যেটা আপনার অবশ্যই জেনে নেওয়া দরকার কারণ আপনি একজন নতুন জিমেইল ইউজার হতে চলেছেন।

সুতরাং গুগলের নিয়ম অনুযায়ী gmail চালানুর চেষ্টা করবেন । সম্পূর্ণ পড়া হয়ে গেলে আপনি তার মতামতের ভিত্তিতে “I agree” বাটনে ক্লিক করবেন। অভিনন্দন! আপনি সফলভাবে জিমেইল একাউন্ট তৈরি করতে পেরেছেন।

এবার এই জিমেইল আইডি খোলার মাধ্যমে আপনি গুগলের যেসব সেবাগুলো ফ্রিতে পেয়ে থাকবেন তা নিয়ে আলোচনা করব ও সেগুলোর একাউন্ট খোলার নিয়ম দেখাবো।

গুগল ড্রাইভ ব্যবহারের উপায়

জিমেইল বা গুগল একাউন্ট খোলার পর গুগলের কাছ থেকে যে সেবাটি আপনাকে সবচেয়ে বেশি আকর্ষন করবে তা হলো গুগল ড্রাইভ।

একটি ইমেইল একাউন্ট খোলার পর গুগল আপনাকে প্রায় ১৫ জিবি অনলাইন স্টোরেজ দিবে, যেখানে চাইলে আপনি যেকোনো ধরনের ফাইল সংরক্ষণ করে রাখতে পারবেন।

মোবাইলের মেমোরি কার্ডে যেমন সবকিছু জমা রাখতে পারেন ঠিক তেমনই গুগল ড্রাইভেও রাখতে পারবেন।

গুগল ড্রাইভে কোনো ফাইল রাখতে হলে সেই পরিমাণ ইন্টারনেট মেগাবাইটের প্রয়োজন হয়। একবার জমা করে রাখতে পারলে যেকোনো সময় সেটা অফলাইনেও দেখতে পারবেন।

আবার চাইলে সেটা ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। বিশ্বের যেকোনো স্থান থেকে আপনি গুগল ড্রাইভে রাখা ফাইলগুলো দেখতে পারবেন ও সংগ্রহ করতে পারবেন।

শুধু মাত্র আপনার ইমেইল আইডি ও পাসওয়ার্ড মনে রাখতে হবে। এই ইমেইল আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে গুগল ড্রাইভে লগইন করলেই ১৫ জিবি অনলাইন মেমোরি পেয়ে যাবেন।

google ইউজারদের জন্য এটা একটি সেরা উপহার। আপনি চাইলে এই ১৫ জিবি স্টোরেজ বাড়িয়ে নিতে পারবেন ডলার খরচ করে।

গুগল ড্রাইভ ব্যবহার করার জন্য অনেকের মোবাইলে এই অ্যাপস সেট করা থাকে। আর যদি আপনার মোবাইলে না থাকে তাহলে প্লে-স্টোর থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারেন।

প্লে-স্টোরে যে জিমেইল আইডি আপনি সাইন আপ করেছেন সেটা দিয়েই অটোম্যাটিক আপনার গুগল ড্রাইভ একাউন্ট খোলা হয়ে যাবে। আর যদি নতুন কোনো জিমেইল আইডি দিয়ে একাউন্ট তৈরি করতে চান তাহলে গুগল ড্রাইভে যেয়ে চ্যাঞ্জ করে নিতে পারবেন।

গুগল ম্যাপ খোলার নিয়ম

একটি জিমেইলের মাধ্যমেই আপনি গুগল ম্যাপও ইউজ করতে পারবেন। গুগল ম্যাপ ইউজ করার জন্য একটি জিমেইল এর দরকার হয় যেটা আপনি এরই মাঝে তৈরি করে ফেলেছেন।

প্লে-স্টোরে বা জিমেইলে যে ইমেইল আইডি লগইন করা থাকবে সেটা দিয়ে অটোম্যাটিক গুগল ম্যাপ একাউন্ট খোলা হয়ে যাবে।

এই গুগল ম্যাপের মাধ্যমে আপনি বিশ্বের প্রত্যেকটি দেশ ও স্থান দেখতে পারবেন। রিয়ালস্টিক ভাবে দেখার জন্য স্যাটেলাইট এর সহায়তা নিতে পারেন।

ইউটিউব একাউন্ট খোলার নিয়ম

অনলাইনে ভিডিও দেখার সবচেয়ে ভালো ও জনপ্রিয় প্লাটফর্ম হলো ইউটিউব। এটাও গুগলের একটি প্রোডাক্ট ।

আপনি যখন জিমেইল একাউন্ট ব্রাউজারে লগইন করে রাখবেন তখন ইউটিউবে ভিজিট করলেই অটোম্যাটিক ইউটিউব চ্যানেল তৈরি হয়ে যাবে।

ফলে আপনি খুব সহজেই ইউটিউবের যাবতীয় সেবা গ্রহণ করতে পারবেন। অনেকে গুগলের এই সেবাটির মাধ্যমে অনলাইন থেকে ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করে থাকে।

আপনি চাইলে গুগলের এই একাউন্টটি খোলার মাধ্যমে প্রতিদিন ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে হাজার লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

গুগল স্লাইড খোলার নিয়ম

আপনার ব্রাউজারে জিমেইল অ্যাকাউন্ট লগইন থাকা অবস্থায় গুগল স্লাইড এ ভিজিট করলেই অটোম্যাটিক একাউন্ট খোলা হয়ে যাবে।

এরজন্য আপনার আর আলাদা কোনো জিমেইল এর দরকার হবে না। গুগল স্লাইডের মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন কাজ প্রেজেন্টেশন করতে পারবেন।

যেটা কম্পিউটারের পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমে সবাই করে থাকে । আর আপনি সেই কাজগুলো অনলাইনের মাধ্যমে করিয়ে নিতে গুগল স্লাইড ব্যবহার করবেন।

এরজন্য আপনার আর কোনো পাওয়ার পয়েন্ট সফটওয়্যারের দরকার হবে না। যেকোনো সময় ইন্টারনেট অন করে গুগল স্লাইডে ভিজিট করে কাজ করতে পারবেন।

গুগল প্লে-গেমস

প্লে-স্টোরে লগইন থাকা জিমেইল একাউন্টের মাধ্যমে আপনি প্লে-গেমস অ্যাপটিও ব্যবহার করতে পারবেন । প্লে-গেমস অ্যাপ থেকে আপনি বিভিন্ন ধরনের গেমস ডাউনলোড করতে পারবেন।

আপনি এই অ্যাপের মধ্যে ভিজিট করলে আপনার লগইন করা জিমেইল এর মাধ্যমে অটোম্যাটিক প্লে-গেমস ব্যবহার করতে পারবেন।

গুগল প্লাস খোলার নিয়ম

টুইটার, ইনস্টাগ্রামের মতো গুগল প্লাসও একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। এটা হলো গুগলের একটি পণ্য। আপনি প্লে-স্টোরের মাধ্যমে যে মেইল একাউন্ট তৈরি করেছেন সেটা দিয়ে গুগল প্লাস একাউন্ট খুলতে পারবেন ।

অথবা যেকোনো ভাবে জিমেইল আইডি তৈরি করে থাকলে গুগল প্লাসে লগইন করলেই নতুন গুগল প্লাস আইডি খুলতে পারবেন। সুতরাং গুগল প্লাস খোলার জন্য আলাদা কোনো জিমেইলের দরকার নেই।

তো আজকে আমরা গুগলের কয়েকটি প্রোডাক্টের একাউন্ট খোলার নিয়ম জেনে নিলাম। এরো বাইরে গুগলের আরো জনপ্রিয় প্রোডাক্ট রয়েছে যেমন – গুগল গুগল ক্রোম, গুগল ট্রান্সলেট, গুগল ভয়েস ইত্যাদি।

আসলে গুগল অনেক বড় একটি কোম্পানি তাই এর ব্যাপারে লিখতে গেলে আর্টিকেলটি অনেক বড় হয়ে যাবে।

তাই আপনার যদি গুগলের বা অন্যকোনো কিছুর একাউন্ট খোলার নিয়ম জানতে চান তাহলে আমাদের কাছে জানাতে পারেন। অথবা নিচে কমেন্ট করতে পারেন।

উপসংহার

জিমেইল অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম থেকে শুরু করে গুগলের বিভিন্ন একাউন্ট খোলার নিয়ম এখানে দেখানো হয়েছে। আপনি শুধুমাত্র একটি জিমেইল একাউন্টের মাধ্যমেই এইসব সকল ধরনের অ্যাকাউন্ট খোলার সুযোগ পাবেন সম্পূর্ণ ফ্রী। গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম জানার পাশাপাশি আপনি আরো কয়েকটি অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। আশা করি আর্টিকেলটি আপনাদের অনেক উপকারে আসবে। ধন্যবাদ!

2 thoughts on “গুগল একাউন্ট খোলার নিয়ম জেনে নিন সহজ উপায়”

  1. Great post. Wonderful information and really very much useful. Thanks for sharing and keep updating
    Thank You so much for sharing this information. I found it very helpful. Thank you so much again.

    Reply

Leave a Comment

error: Content is protected !!